স্বাধীনতা পুরস্কার অথবা স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার এমন একটি সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা পদক যা বাংলাদেশের সরকারের পক্ষ থেকে প্রদান করা হয়ে থাকে সকল কিংবদন্তি দের। বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনের জন্য যে যুবকরা যুদ্ধ করে গিয়েছেন তাদেরকে আমরা বীর মুক্তিযোদ্ধা বলি। আর যারা এই যুদ্ধে নিজের জীবন হারিয়েছেন তাদেরকে আমরা বলি বীর শহীদ। 

সেই মুক্তিযুদ্ধে শহীদ হওয়া লাখো যুবকের স্মরণে প্রতিবছর বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস 26 শে মার্চে এই পদক টি প্রদান করা হয়ে থাকে। এই পদক দেওয়ার পরম্পরা টি চলে আসছে সেই ১৯৭৭ সাল থেকেই। এটি খুবই সম্মান এর একটি পুরস্কার। যেই ব্যক্তিগণ নিজেদের জাতীয় জীবনে সরকারের পক্ষ থেকে নির্ধারিত করা বিভিন্ন কর্ম ক্ষেত্রে গর্বিত এবং গৌরবোজ্জ্বল অবদান রেখে গিয়েছেন সেই ব্যক্তি অথবা গোষ্ঠীকে এই পুরস্কারে সম্মানিত করা হয়। এছাড়াও ব্যক্তিগত জীবনেও যদি নিজের দেশের জন্য উল্লেখযোগ্য অবদান পালন করে থাকেন তাহলে সেই ব্যক্তি বা গোষ্ঠী কেও এই সম্মাননা প্রদান করা হয়।

আমাদের মহান নেতা জনাব আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু এমনই একজন নেতা যিনি এই সম্মাননা পেয়েছেন। কারণ তিনি তার জীবনে অনেক কিছুই করে গিয়েছেন যা আমাদের বাংলাদেশের জন্য বেশ গৌরবোজ্জ্বল এবং কৃতিত্বপূর্ণ। বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় তিনি যা যা করে গিয়েছেন সেই পরিপ্রেক্ষিতে জনাব আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু এই সম্মাননা টি ডিজার্ভ করে।

🔸রাজনীতির ইতিহাসে আপনারা অনেক মহান মানুষদের কথা জানেন। এমন অনেক মহান মানুষ রাজনীতির ময়দানে ছিল যাদের আজও আমরা ভুলতে পারিনা। কারণ সেই মহান মানুষগুলো রাজনীতির ময়দানে এমন এমন কাজ করে গিয়েছেন যা আজও দৃষ্টান্ত হয়ে আমাদের সবার চোখের সামনে রয়েছে। রাজনীতিতে যেন তারা এক বিশাল চমক এনে দিয়েছিল। 

রাজনীতিতে নতুন এক মাত্রা যোগ করে ছিল নিজেদের মেধা ও শ্রম এর মাধ্যমে। তারা রাজনীতির জন্য এত কিছু করেছেন বলেই আজ তারা মহান রাজনীতিবিদ হিসেবে সমাজের কাছে এবং দেশের কাছে আখ্যায়িত। আজকাল অনেকেই রাজনীতিতে শুধুমাত্র শখের বশে আছে। কিন্তু সেই মহান ব্যক্তিরা কখনোই শখের বশে রাজনীতি করেননি বরং তাদের রগে রগে যুক্ত ছিল রাজনীতির জন্য মায়া ভালবাসা এবং মমতা। তাদের একমাত্র লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য ছিল রাজনীতিতে নতুন কিছু চমক দেখানো। কারণ তারা ছিলেন একজন সত্য দেশপ্রেমী , তারা নিজের দেশের জন্য নিজের জীবন টা পর্যন্ত দিতেও পিছপা হতেন না। 

জনাব আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু ছিলেন ঠিক এমন একজন মানুষ যিনি রাজনীতির মাধ্যমে দেশের জনগণকে খুব বেশি সাহায্য করেছেন এবং মুক্তিযুদ্ধের সময় তার অবদান অতুলনীয়। তিনি মুক্তিযুদ্ধে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে ছিলাম বলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনা বেশ সহজ হয়ে গিয়েছিল। জনাব আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবুর এমন কর্মকাণ্ডের জন্য সবাই আজও তাকে মনে রেখেছে এবং তার এই মহান কর্মকাণ্ডের জন্যই তাকে স্বাধীনতা পদক পুরস্কারে সম্মানিত করা হয়েছিল।

Know more about: আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু থেকে আপনি যে বিশেষ একটি দক্ষতা শিখতে পারেন

Add Your Comment